পঁচিশে বৈশাখ

সুপ্রভাত—

আজ পঁচিশে বৈশাখ 1428 বঙ্গাব্দ, রবিবার। বিশ্ব সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ ঔপন্যাসিক, নাট্যকার,কাহিনীকার,কাব্যকার,চিত্রকার……কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম বার্ষিকী। এই উপলক্ষ্যে আজ আমি কিছু বলতে চাই । এমনিতেই তো কবিগুরুর বিশাল প্রতিভার সম্পর্কে সবার সবকিছু জ্ঞাত।

নতুন করে কিছু বলার নেই ।
তাই বাঁধন ছাড়া কিছু কথা লিখছি ।

“রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামকরণ করা কিছু ফুল-“

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পুষ্প ও উদ্ভিদ প্রেম নিয়ে নতুন করে কিছু বলার অবকাশ রাখেনা। তার কাব্যে ১০৭ টি ফুলের উল্লেখ আছে। তার গান, কাব্য, কবিতায় বাংলার অজস্র দেশী- বিদেশী ফল, ফুলের চর্চা রয়েছে। গুরুদেব শান্তিনিকেতনকে সবুজ করে তুলতে শুরু করেছিলেন বর্ষামঙ্গল, হলকর্ষণ ও বৃক্ষরোপণ উৎসবের মাধ্যমে। বিশ্বভ্রমনকালে দেশ-বিদেশ হতে বহু ফুল ও গাছ তিনি এনেছেন শান্তিনিকেতনে। বিশ্বভ্রমনকালে বহু বিদেশী ফুল যেমন রডোডেনড্রন ও ক্যামেলিয়াকে নিয়েও তিনি লিখেছেন তার “শেষের কবিতা” ও “পুনশ্চে” দীর্ঘ কবিতা।
গুরুদেব তার নিজের বক্তব্যে জানিয়েছেন যে বহু ফুলের বিদেশী কঠিন নাম তিনি মনে রাখতে পারেননা, তাই তাদের তিনি তাঁর মতন করে সুন্দর সুন্দর নাম দিয়েছেন। বাংলা সাহিত্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ছাড়া আর একজন বিখ্যাত সাহিত্যিকও বহু ফুলের নামকরণ করেছেন তার নিজের মতন করে- তিনি হলে বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়। আজকের চর্চা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামকরণ করা ফুল। গুরুদেবকে আমার শ্রদ্ধার্ঘ্য জানাই তার নামকরণ করা বিভিন্ন ফুলের পুষ্পার্ঘ্যে।🙏🏽🌹
আমার কথায় কোনো ভুল থাকলে তা সংশোধনে আগ্রহী। আবার কোনও নতুন তথ্য পেলে তা সংযোজনেও বিশেষ উৎসাহী। আমার উল্লিখিত প্রতিটি ফুলের চর্চা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানে, কবিতায় বা গল্পে আছে। কিছু ফুলের চর্চা যেমন ‘হিমঝুরি’ বা ‘বনপুলক’ এর কথা তিনি করেছেন তার চিঠিতে,যার পরিচয় আমরা তাঁর চিঠি-পত্র
পড়লে পাই।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামকরণ করা ফুল🌷

১) #হিমঝুরি
বৈজ্ঞানিক নামঃ Milingtonia hortensis.
স্হানীয় নামঃ আকাশ নিম, আকাশ মল্লিগে, ইন্ডিয়ান কর্ক।

২) #নীলমনি
বৈজ্ঞানিক নামঃ Petrea volubilus
স্হানীয় নামঃ Queen’s wreath, Bluebird vine, Sand paper vine

৩) #অগ্নিশিখা
বৈজ্ঞানিক নামঃ Gloriosa superba
স্হানীয় নামঃ উলোটচন্ডাল, Flame lily, Tiger claw, Fire lily.

4) #উদয়পদ্ম
বৈজ্ঞানিক নামঃ Magnolia grandiflora
স্হানীয় নামঃ হিম চাঁপা।

৫) #বনপুলক
বৈজ্ঞানিক নামঃ Pavetta indica

৬) #বাগানবিলাস
বৈজ্ঞানিক নামঃ Bougenvilea
স্হানীয় নামঃ কাগজিফুল।

৭) #অমলতাস
বৈজ্ঞানিক নামঃ Cassia fistula
স্হানীয় নামঃ বাঁদরলাঠি, সোনালু, সানাইল, কর্ণিকা, Golden shower.

৮) #তারাঝরা
বৈজ্ঞানিক নামঃ Clematis gouriana
স্হানীয় নামঃ স্ক্যানেভিয়ান ফুল

৯) #অলকানন্দা
বৈজ্ঞানিক নামঃ Allamanda cathartica
স্হানীয় নামঃ Golden trumpet, Yellow bell.

১০) #গুলঞ্চ
বৈজ্ঞানিক নামঃ Plumeria
স্হানীয় নামঃ গোলক চাঁপা, কাঠ চাঁপা, গরুড় চাঁপা, চালতা গোলাপ।

১১) #পারিজাত
বৈজ্ঞানিক নামঃ Fusca variegata
স্হানীয় নামঃ মান্দার, পালতে মান্দার।

১২) #মধুমঞ্জরী
বৈজ্ঞানিক নামঃ Quisqualis indica
স্হানীয় নামঃ মধুমালতি

১৩) #সোনাঝুরি
বৈজ্ঞানিক নামঃ Accacia auriculiformis
স্হানীয় নামঃ আকাশমনি।

১৪) #পলকজুঁই
বৈজ্ঞানিক নামঃ Clrodenrrum inerme
স্হানীয় নামঃ বন জুঁই।

শান্তিনিকেতনের দুটি আরও বিখ্যাত ফুল আছে যা বসন্তে শান্তিনিকেতনকে আলো করে রাখে ‌, যার স্হানীয় নাম হল #বাসন্তিকা(Tabebuia serratiflora) ও #ফাগুন বৌ (Cochlo sternum)। এ দুটি ফুলের নামকরণ গুরুদেবের করা কিনা তা নিয়েও আমরাও পুরোপুরি নিশ্চিত নই।
এছাড়া গুরুদেবের নামকরণ করা আরও দুটি ফুলের চর্চা পাই যা হল সাঁওতালদের বনজ ফুল, গুরুদেব যাকে বলেছেন #লাঙ্গল ফুল এবং আর একটি হল #বাসন্তী– যাদের সম্বন্ধেও আমাদের জ্ঞান সীমিত।
তবে পৃথিবীতে একই ফুলের বিভিন্ন স্থানীয় নাম আছে, আবার একই নাম বিভিন্ন ফুলের আছে । তবে প্রত্যেকটি ফুলের বৈজ্ঞানিক নাম একটিই হয়। তাই ফুলেদের বৈজ্ঞানিক নামে চেনাটাই বেশি ভালো।

ভালো থাকবেন আর সব্বাইকে ভালো রাখবেন।
—রেখা বন্দ্যোপাধ্যায়—

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s